Ajker Digonto
সোমবার , ২৮ অক্টোবর ২০১৩ | ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. অর্থনীতি
  4. আইন- আদালত
  5. আইন-আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আলোচিত মামলা
  8. খুলনা
  9. খেলা
  10. খেলাধুলা
  11. চট্টগ্রাম
  12. চট্টগ্রাম বিভাগ
  13. জাতীয়
  14. ঢাকা
  15. তথ্য প্রযুক্তি

গিনেস বুকে বাংলাদেশের খুদে প্রোগ্রামার

প্রতিবেদক
Staff Reporter
অক্টোবর ২৮, ২০১৩ ৬:২০ অপরাহ্ণ
গিনেস বুকে বাংলাদেশের খুদে প্রোগ্রামার

Rupkotha-640
রূপকথা। পুরো নাম ওয়াসিক ফারহান রূপকথা। বিশ্বের সবচেয়ে খুদে কম্পিউটার প্রোগ্রামার হিসেবে গিনেস বুকে নাম উঠতে যাচ্ছে সাত বছরের এই শিশুর। এর আগে ছয় বছর বয়সে বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ কম্পিউটার প্রোগ্রামারের পদবিটি দখল করে রূপকথা বিশ্বে ইতিহাস সৃষ্টি করে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়। আর এবার উঠছে গিনেস বুকে। ইতোমধ্যে দ্য নিউইয়র্ক, হেরাল্ড ট্রিবিউন, ক্যালিফোর্নিয়া অবজারভার, এস্টেট নিউজ, চিলড্রেন পোস্ট এবং অনেক আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট তাকে বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ কম্পিউটার প্রোগ্রামার হিসেবে অভিহিত করেছে। এছাড়া বাংলাদেশের বিভিন্ন আইটি প্রতিষ্ঠান তাকে একজন সর্বকনিষ্ঠ কম্পিউটার প্রোগ্রামার হিসেবে সংবর্ধনাও দিয়েছে।
অন্যদিকে যুক্তরাজ্যভিত্তিক বিশ্বনন্দিত টিভি অনুষ্ঠান ‘রিপ্লিস বিলিভ ইট অর নট’ রিপ্লিস তাদের নতুন বইতে রূপকথার নাম অন্তর্ভুক্ত করে। এরপর অষ্টম শ্রেণীর ‘ইংলিশ ফর টুডে’ টেঙ্’ বইয়ে তার নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়। অনেক কিছু বুঝে উঠার আগেই বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করতে যাচ্ছে সে। উঠতে যাচ্ছে গিনেস বুকে নাম। রূপকথা’র মা সিনথিয়া ফারহিন রিসা গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, শীঘ্রই বিশ্বের সবচেয়ে খুদে প্রোগ্রামার হিসেবে গিনেস বুকে রূপকথার নাম প্রকাশ পেতে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে এ বিষয়ে গিনেস বুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একটি চুক্তি হয়েছে। তিনি আরও বলেন, গিনেস বুকে নাম প্রকাশের নিয়ম অনুযায়ী, গত ১৬ মে ক্রিয়েটিভ আইটি থেকে একটি ভিডিও ডুকুমেন্টেশন তৈরি করা হয়েছে। ডকুমেন্টশনটি শনিবার ডিএইচএল করেছি। আশা করছি, সত্বর এটি তাদের হাতে পেঁৗছবে। অধিকাংশ শিশু যখন খেলনাপত্র নিয়ে খেলাধুলা করে তখন রূপকথা তার নিজস্ব কম্পিউটার সিস্টেম (উইন্ডোজসহ) তৈরি করে এবং একজন বিশেষজ্ঞের মতো কম্পিউটার প্রোগ্রামিং করে। জন্মগতভাবে মেধাবী রূপকথার বাসা রাজধানীর গুলশানে। সিনথিয়ার বাবা ওয়াসিম ফারহান ব্যবসায়ী। অবিশ্বাস্যভাবে মাত্র আট মাস বয়স থেকেই সে কম্পিউটার নিয়ে নাড়াচাড়া শুরু করে এবং দুই বছর বয়সে কম্পিউটারে লেখালেখি করা শিখে ফেলে। মজার কথা হলো, কম্পিউটার প্রোগ্রাম নিয়ে ব্যস্ত থাকায় এখনো তাকে স্কুলে ভর্তি করা হয়নি।

রূপকথা’র মা জানান, এই বিস্ময় বালক প্রতিদিন ১২ ঘণ্টারও বেশি কম্পিউটারের পেছনে ব্যয় করে এবং গেমের কারেক্টর কিভাবে পরিবর্তিত হয় তা জানার চেষ্টা করে। শুধু গেমস নয় নিত্যনতুন প্রোগ্রাম নিয়ে কাজ করতে ভালেবাসে সে। বর্তমানে সি++, জাভা প্রোগ্রাম নিয়ে কাজ করছে। নিজের সফলতা সম্পর্কে জানতে চাইলে সাত বছরের রূপকথা জানায়, তার সবকিছু কম্পিউটারকে ঘিরে। গিনেস বুকে জায়গা পেতে যাচ্ছে এই খবরে শুধু সে নয় তার বন্ধুরাও খুব খুশি। চেষ্টা করছে ভিন্ন কিছু প্রোগ্রাম সৃষ্টি করতে।

সর্বশেষ - অন্যান্য